কমিশনের ধমকের পরই সরানো হল ব্যারাকপুরের যুগ্ম কমিশনার অজয় ঠাকুরকে!

অবশেষে বদলি করা হল ব্যারাকপুরের যুগ্ম কমিশনার (ক্রাইম) অজয় ঠাকুরকে। বুধবার রাতেই এক নির্দেশিকা জারি করে অজয় ঠাকুরকে ডিআইজি সিআইডি পদে বদলির নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। তাঁর জায়গায় পাঠানো হল অমরনাথ কুমারকে, তিনি শিলিগুড়িতে এসটিএফ-এর এসপি ছিলেন। এর আগে বারবার ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং এই সিনিয়র আইপিএস সম্পর্কে অভিযোগ করে আসছিলেন। বিশেষ করে তিনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার আগে থেকেই অজয় ঠাকুরের সঙ্গে অর্জুন সিংয়ের মধ্যে সংঘাত শুরু হয়। ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ তৃণমূল ছাড়ার পর থেকেই ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের কাজকর্ম নিয়ে সরব হয়েছিলেন। বিশেষ করে তিনি যুগ্ম কমিশনার (ক্রাইম) অজয় ঠাকুরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছিলেন যে তিনি শাসকদলের অঙ্গুলিহেলনে কাজ করছেন। গত মাসেই টিটাগড়ে  এক জনসভায় সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারীও অজয় ঠাকুরকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। 

সূত্রের খবর, বুধবারই কলকাতায় এসে উপ নির্বাচন কমিশনার সূদীপ জৈন পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের সময় ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মাকে ব্যবস্থা নিতে বলেন। তিনি কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, কোথাও গাফিলতির প্রমাণ মিললে শো-কজ করবে না কমিশন। সরাসরি অপসারণ করা হবে সেই পুলিশ আধিকারিককে। রাজনৈতিক শিবিরের মতে, এরপরই সরিয়ে দেওয়া হল অজয় ঠাকুরকে। কারণ এখন না সরালে ভোট ঘোষণার পরই তাঁকে বদলি করত কমিশন। সেক্ষেত্রে তাঁকে কোথায় পাঠানো হবে তা ঠিক করতো নির্বাচন কমিশনই। উল্লেখ্য গত লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই খবরের শিরোনামে রয়েছে ব্যারাকপুর। ধারাবাহিক রাজনৈতিক হিংসায় পরপর কয়েকমাস উত্তপ্ত ছিল এই শিল্পাঞ্চল। বুধবার রাজ্যের পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে ব্যারাকপুরের পরিস্থিতি নিয়ে আলাদা করেই কথা বলেন উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। এরপরই এই সিদ্ধান্ত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বাংলার রাজনৈতিক মহলে। তবে নবান্ন থেকে বলা হচ্ছে এটা রুটিন বদলি। কারণ ওই পদে তিন বছর অতিক্রম করেছিলেন অজয় ঠাকুর। কিন্তু বিজেপির দাবি, অজয় ঠাকুর আরও বেশি সময় ওই পদে ছিলেন। 


Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.