ব্রিগেডে বামেদের টার্গেট ১০ লাখ, ভরসা কি শুধুই ‘টুম্পা সোনা’?

একুশের ভোটের প্রস্তুতিতে ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছে বামফ্রন্ট। আর মাঠ ভরাতে এবার তাঁরা জনপ্রিয় একটি গানকেই হাতিয়ার করল। ‘টুম্পা/তোকে নিয়ে ব্রিগেড যাব/টুম্পা/চেন ফ্ল্যাগে মাঠ সাজাব/টুম্পা/২৮ শে তুলব আওয়াজ/টুম্পা/মোদি-দিদি সব ভোগে যাক’। ওয়েব সিরিজের জনপ্রিয় গান ‘টুম্পা সোনা’র সঙ্গে তাল মিলিয়ে তৈরি করা এই গানটিই এখন সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ব্রিগেডের ডাক দিয়ে টুম্পা সোনার রিমেক এখন মুখে মুখে ফিরছে। আর এই গানটিই সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করে ব্রিগেডে চলো-র আহ্বান জানালেন বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র।



আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডের রাজনৈতিক সমাবেশে বিপুল জনসমাগমের লক্ষ্য নিয়েছে বামফ্রন্ট। তাঁদের টার্গেট ১০ লাখ মানুষকে ব্রিগেডে হাজির করানো। এমনিতেই বামেদের সঙ্গে ব্রিগেডের একটা আত্মিক যোগ রয়েছে। দীর্ঘ ৩৪ বছরের শাসনকালে তাঁরা বহুবার ব্রিগেড সমাবেশ করেছে। এবং এই ব্যাপারে (ব্রিগেড ভরাতে) ওস্তাদ মানুষ ছিলেন প্রয়াত বাম নেতা সুভাষ চক্রবর্তী। সেই সুভাষও নেই, সেই বামফ্রন্টও আর ক্ষমতায় নেই। কাজেই একডাকে লাখ লাখ লোক হাজির করা আজকের দিনে বেশ কঠিন বামপন্থী সংগঠনগুলির কাছে।  তবে এবার একা বাম দলগুলোই নয়, সঙ্গে রয়েছে ২০২১-এর ভোটের জোটসঙ্গী প্রদেশ কংগ্রেস। তাই ব্রিগেডে বৃহত্তম সমাবেশ করে তাঁক লাগাতে চাইছেন বাম নেতৃত্ব। বক্তাও ঠিক করা হচ্ছে অবস্থান বুঝেই। 

কলকাতা ময়দানে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে সোনিয়া গান্ধি, রাহুল গান্ধি সহ বিভিন্ন দলের ভিআইপি রাজনীতিবিদদের। এত কিছুর পরও ব্রিগেডের প্রচারে সাম্প্রতিক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় একটি গানকেই হাতিয়ার করল বাম নেতৃত্ব। মূলত যুব প্রজন্মকে ব্রিগেডমুখী করতেই ‘টুম্পা সোনা’ গানটির রিমেক করে সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। যদিও বাম নেতৃত্বের একাংশের দাবি, এই জাতীয় গানে ছাড়পত্র নেই তাঁদের। কিন্তু সিপিএম নেতারাই সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘টুম্পা সোনা’ গান তুলে ধরে ব্রিগেডের প্রচার শুরু করে দিয়েছেন। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে যে আজকের যুব সম্প্রদায়ের পছন্দ-অপছন্দ বুঝে নিতে হবে, তা দিব্যি টের পেয়েছেন বাম নেতারা। অপরদিকে দিনটি রবিবার হওয়াতে বামেদের আশা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ আসবেন। সিপিএমের সর্বভারতীয় সম্পাদক সীতারাম ইয়াচুরি রয়েছেন ব্রিগেডে সমাবেশের মূল দায়িত্বে। পাশাপাশি সকলেরই কৌতূহল, সভায় কি আব্বাস সিদ্দিকী থাকবেন? সিদ্দিকীর নতুন দলের সঙ্গে জোটে আগ্রহী বাম নেতৃত্ব। ফলে আব্বাস সিদ্দিকির সঙ্গে সম্পর্ক এখনও ঠিকই আছে বলে জানাচ্ছে বাম নেতৃত্ব।  


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.