অমিত শাহ কি নির্বাচন কমিশন চালাচ্ছেন? প্রশ্ন মমতার


নবান্ন দখলের লড়াইয়ে ইতিমধ্যেই প্রচারে নেমেছে যুযুধান সব পক্ষ। ভাঙা পা নিয়ে, হুইল চেয়ারেই জেলায় জেলায় প্রচার করছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার বাঁকুড়ার ছাতনায় এক জনসভায় তিনি বিজেপির সর্বভারতীয় নেতা তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে তীব্র আক্রমণ করলেন। পাশাপাশি কটাক্ষ ছুড়লেন নির্বাচন কমিশনকেও। এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, ‘নির্বাচন কমিশনের প্রতি সম্মান জানিয়েই বলছি, দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীই তাদের কাজে হস্তক্ষেপ করছেন। আমার সন্দেহ, তিনিই সব কিছু চালাচ্ছেন। এমন যদি চলতে থাকে, তাহলে দেশটা বিক্রি হয়ে যাবে’। 

পাশাপাশি তিনি অমিত শাহ কে আক্রমণ করতে গিয়ে বলেন, ‘হোম মিনিস্টার দেশ চালাবেন। তা না করে কলকাতায় বসে চক্রান্ত করছেন, কোথায় কাকে গ্রেফতার করা হবে। শিল্পপতিদের ঘরে ঘরে রেইড করা হচ্ছে। কী ভাবেন অমিত শাহ নিজেকে?’ এদিনও হুইল চেয়ারে বসেই ভাষণ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই জন্য উপস্থিত জনতার সামনে ক্ষমা চেয়ে তিনি বলেন, ‘আমি রোজ ৩০-৩৫ কিলোমিটার হাঁটি, কিন্তু এথন পায়ে প্লাস্টার। তাই হাঁটতে পারছি না। আমি যখন হাঁটি, উন্নয়নও হাঁটে’। এছাড়া এদিন তৃণমূলের দলছুটদেরও একহাত নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সরাসরি কারোর নাম না নিয়েই তাঁর কটাক্ষ, ‘সিপিএম থেকে আসা কিছু গুন্ডা আমাদের দলেও ছিল। কিছু মিরজাফর, বিশ্বাসঘাতক ছিল। তাড়ানোর আগেই চলে গিয়েছে। বেঁচে গিয়েছি আমি। তৃণমূল এখন মানুষের দল’। উল্লেখ্য, শুভেন্দু অধিকারী, মুকুল রায়, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ একাধিক তৃণমূল নেতা দল ছেড়ে এখন বিজেপি শিবিরে। তাঁদেরই ‘মিরজাফর’ বলে আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেত্রী।

 এদিন বাঁকুড়ার কৃষকদের উদ্দেশ্যেও তিনি বার্তা দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী দিনে নাসিক থেকে আর পেঁয়াজ আনব না আমরা। বাংলাতেই উৎপাদন করব। নরেন্দ্র মোদী সরকারকে বাংলার কৃষকদের অধিকার লুঠ করতে দেব না’। পাশাপাশি তৃণমূল প্রার্থীদের ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রার্থী যে-ই হোন, এই ভোট আমার ভোট। আপনারা ভোট না দিলে আর সরকার গড়তে পাব না। সব প্রকল্প আটকে যাবে।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.