যৌন অপরাধে ধর্মপ্রচারকের ১,০৭৫ বছরের জেল

যৌন অপরাধের দায়ে তুরস্কের এক ধর্ম প্রচারককে ১০৭৫ বছর কারাদণ্ডের সাজা দিল আদালত। সাজাপ্রাপ্ত ওই ব্যক্তির নাম আদনান ওকতার (৬৪)। ২০১৮ সালের জুন মাসে মহিলা ও শিশুদের উপর যৌন অত্যাচার, গুপ্তচরবৃত্তি ও জালিয়াতি-সহ একাধিক অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করেছিল ইস্তানবুল পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধদমন শাখার পুলিশ। তারপর থেকে আড়াই বছর ধরে মামলা চলার পর সোমবার তার সাজা শোনায় তুরস্কের উচ্চ ফৌজদারি আদালত।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, তুরস্কের বিতর্কিত প্রচারক ও বিভিন্ন ধর্মীয় গ্রন্থের লেখক আদনান ওকতার ওরফে হারুন টিভিতে ধর্মীয় বিষয়ে কথা বলত। বিভিন্ন টক শোতেও আলোচনা করত ধর্মীয় মূল্যবোধ নিয়ে। আর সেই সব আলোচনার ফাঁকে চড়া মেকআপ ও স্বল্প পোশাক পরা সুন্দরী মহিলাদের সঙ্গে নাচও করত সবার সামনে। এই মহিলাদের আবার আদর করে নিজের ‘বিড়ালছানা’ বলেও পরিচয় দিত। বিষয়টির জেরে ১৯৯০ সালে প্রথমবার জেলেও গিয়েছিলেন সে।

গত ২০১৮ সালে ফের তার নামে অপরাধমূলক সংগঠনের নেতৃত্ব দেওয়া, মহিলা ও শিশুদের যৌন নিপীড়ন, অস্ত্র দিয়ে মানুষকে হুমকি, ব্যক্তিগত তথ্য সংরক্ষণ, মানুষকে শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা, নির্যাতন, পাচার, সামরিক গুপ্তচরবৃত্তি, জালিয়াতি এবং প্রতারণার অভিযোগ ওঠে। এরপরই ইস্তানবুলের বাড়ি থেকে আদনান ওকতারকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মোট ২৩৬ জনকে আটক করা হয়েছিল। পরে তাদের মধ্যে ৭৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেরায় নিজের অপরাধের কথা কবুল করে সে জানায়, তার হাজারের বেশি বান্ধবী রয়েছে। তাদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের কথাও সে স্বীকার করে। এরপরই তাকে ১০৭৫ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারক।


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.