‘বিজেপি মানেই চমক, লিস্ট ভারি হবে’, বড় ইঙ্গিত দিলেন দিলীপ

শুক্রবার রাতেই কলকাতায় এসে পড়ছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় শীর্ষ নেতা অমিত শাহ। শনিবার ও রবিবার এই রাজ্যে তাঁর ঠাসা কর্মসূচি। এরমধ্যে রবিবার হাওড়া ডুমুরজলা স্টেডিয়ামে তাঁর জনসভার দিকে তাকিয়ে গোটা বাংলা। ওই সভায় অনেক হেভিওয়েট নেতা বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন বলেই জল্পনা। এরমধ্যেই সেই জল্পনা আরও উস্কে দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শুক্রবার সকালেই নিউটাউনের ইকো পার্কে প্রাতঃভ্রমণের পর তিনি জানিয়ে দিলেন, ‘বিজেপি মানেই চমক, অনেকেই আসতে চাইছেন। তাই তালিকা ভারি হবে। অনেক তালিকা ঘুরছে, কোনটা হিট হবে দেখা যাক’। ফলে অমিত শাহর রাজ্য সফরে দলবদলের পাল্লা আরও ভারি হতে চলেছে বলেই মনে করছেন বাংলার রাজনৈতিক মহল। 

প্রসঙ্গত বলা যায়, ইতিমধ্যেই হাওড়া বালির বহিষ্কৃত তৃণমূল বিধায়ক বৈশালি ডালমিয়া আগেই জানিয়ে দিয়েছেন তিনি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। সূত্রের খবর, তাঁর সঙ্গে ইতিমধ্যেই অমিত শাহর কথা হয়েছে। অপরদিকে সকলের নজর রয়েছে রাজ্যের পদত্যাগী বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে। তিনি মন্ত্রিত্ব ছাড়লেও দলের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখছেন। কিন্তু ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন তিনি ডোমজুড় থেকেই ভোটে লড়তে চান। ফলে তৃণমূল ছাড়া তাঁর সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সূত্রের খবর, অমিত শাহর হাত ধরে বিজেপিতে এই দুজনেই বিজেপি যাচ্ছেন। পাশাপাশি হাওড়া উত্তরের তৃণমূল বিধায়ক লক্ষ্ণীরতন শুক্লা, হুগলির উত্তরপাড়ার বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল, ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল বিধায়ক দীপক হালদার এবং জয়নগরের তৃণমূল সাংসদ প্রতিমা মণ্ডল বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন বলে শোনা যাচ্ছে। এদিন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় নিয়েও প্রশ্ন করা হয়। সৌরভকে কি মুখ্যমন্ত্রীর পদে দেখতে পাওয়া যাবে? এই প্রশ্নের উত্তর সুচতুরভাবে এড়িয়ে যান দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘আমরা ডাক্তার নই, মুখ্যমন্ত্রীও ডাক্তার নয়। সবাই ছবি তুলতে চলে যায়। আমি ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করি না এই ব্যাপারটা। চাই না আমার পার্টির লোক গিয়ে ভিড় করুক সেখানে। বাড়ির লোকের কাছ থেকে খোঁজ নিতে পারেন। আমরা ভগবানের কাছে প্রার্থনা করছি তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠুন’।


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.