শেষ মুহূর্তে স্বস্তি, শর্তসাপেক্ষে গঙ্গাসাগর মেলার অনুমতি

সংক্রমণের আশঙ্কা থাকলেও শর্তসাপেক্ষে গঙ্গাসাগর মেলার অনুমতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, মেলা নিয়ে রাজ্য সরকারের রিপোর্টে তাঁরা সন্তুষ্ট। সেই প্রেক্ষিতেই গঙ্গাসাগর মেলা বা স্নানের ওপর কোনো নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হল না। তবে গঙ্গাসাগর মেলায় ই-স্নান করার পক্ষেই জোর দেওয়া হচ্ছে। যে সমস্ত পুণ্যার্থী মেলাতে গিয়েও ই-স্নান করবেন তাঁদের বিনামূল্যে পুজোর সামগ্রী দিতে হবে রাজ্য সরকারকে। আর যাঁরা বাড়িতে ই-স্নানের কিট নিয়েছেন পরিবহণ খরচ ছাড়া অন্য কোনও টাকা তাঁদের থেকে নেওয়া যাবে না। তবে করোনা সংক্রমণ রুখতে মেলায় স্বাস্থ্যবিধি সঠিক ভাবে পালনে প্রশাসনের ভূমিকা খতিয়ে দেখবে হাইকোর্ট। আগামী ১৮ জানুয়ারি ফের মামলাটি উঠবে প্রধান বিচারপতি টিবি রাধাকৃষ্ণণনের ডিভিশন বেঞ্চে। 

এদিন করোনার কথা মাথায় রেখে গঙ্গাসাগর মেলা বন্ধ করার আর্জি জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করা হয়েছিল। গঙ্গাসাগর মেলা প্রাঙ্গণ ও  কলকাতার বাবুঘাট এলাকাকে কনটেইনমেন্ট জোন করারও আবেদন করা হয়। সেই প্রেক্ষিতেই হাইকোর্ট রাজ্য সরকারের জানতে চায়, প্রশাসন করোনা রুখতে কি ব্যবস্থা নিয়েছে? জোর দেওয়া হয় ই-স্নানেও। সেইমত রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের ডিরেক্টর অজয় চক্রবর্তী রিপোর্ট পেশ করে জানান, গঙ্গাসাগরের লবণাক্ত জল বহমান। তাই ড্রপলেটের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা তুলনায় অনেকটাই কম। তবে রাজ্য সরকার  ই -স্নানের ওপরই বেশি জোর দিচ্ছে। আগের বছরের মোট জমায়েতের মাত্র ১৫ শতাংশ মানুষ গিয়েছেন গঙ্গাসাগরে। এরপরই এদিন হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ নিজেদের রায় জানায়। তবে কেউ যদি গঙ্গাসাগরে জলে নেমে স্নান করতে চান, তাতে বাধা দেওয়ার কোনও  নির্দেশ দেওয়া হয়নি।  

Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.