দশজনের ইস্টবেঙ্গলকে বাঁচাল ‘সেভজিৎ’, ড্র করেও প্রশংশিত ফাওলার

সপ্তাহের প্রথম দিনেই আইএসএলে দু’বারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইয়িন এফসির মুখোমুখি হয়েছিল এসসি ইস্টবেঙ্গল। প্রথম পর্বের মত দ্বিতীয় পর্বেও চেন্নাইয়ানের বিরুদ্ধে ভাল খেলও জয় অধরা লাল-হলুদ শিবিরের। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচের ৬৫ মিনিটের বেশি সময় ১০ জন মিলে লড়াই করে ফাওলারের ছেলেরা। ম্যাচ শেষ হয় গোল শূন্য ভাবে। ম্যাচ থেকে উভয় দলই ১ পয়েন্ট করে ভাগ করে নেওয়ায় আপাতত লিগ টেবিলে অবস্থান বদল হল না কোনও দলের। যদিও ম্যাচ জিতলে লিগ টেবিলে বড়সড় লাফ দেওয়ার সম্ভাবনা ছিল এসসি ইস্টবেঙ্গলের সামনে।

ম্যাচের প্রথমার্ধ থেকে কোন দল এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে চাইনি। ফলে চোখে পড়ার মতো ছিল দুই দলের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। ১৮ মিনিটে সুযোগ আসে চেন্নাইয়ানের কাছে। ইসমা পাস দেন ছাংতেকে। তবে তাঁর শট বার উঁচিয়ে বাইরে যায়। ২১ মিনিটে প্রথমবার ফাউলের পর লাল-হলুদের ডিফেন্ডার অজয় ছেত্রীকে রেফারি সতর্ক করেই ছেড়ে দিচ্ছিলেন। তবে অহেতুক তর্ক করে কার্ড হজম করেন তিনি। দ্বিতীয়বার ৩১ মিনিটে চেন্নাইয়ানের স্ট্রাইকার রহিম আলিকে অবৈধ ভাবে বাধা দেওয়ায় দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখায় রেফারি, ফলে লাল কার্ড দেখিয়ে তাঁকে মাঠের বাইরে যাওয়ার নির্দেশ দেন ম্যাচ পরিচানলায় থাকা রেফারি। তবে ৩১ মিনিটেই দশ জন হয়ে যাওয়ার পরেও দমে যায়নি ফাওলারের লাল-হলুদ ব্রিগেড। চেন্নাইয়িন আক্রমণকে প্রতিহত করে গিয়েছে বাকি ম্যাচ। যদিও নিশ্চিত গোলের হাত থেকে অন্তত পাঁচবার বাচিয়েছে দেবজিতের হাত। বার দুয়েক তো শরীর শূন্যে ছুঁড়ে একহাতে দলের পতন রুখেছে দেবজিৎ মজুমদার। চেন্নাইয়ানের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে প্রাক্তন ফুটবলাররা লাল-হলুদকেই এগিয়ে রেখেছিল। ব্রাইট এনোবাখার দলে যোগ দেওয়ার পর থকেই বদলে গিয়েছে এসসি-ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু সোমবার রাতে ম্যাচের সিংহভাগ দশজনে খেলার জন্য ব্রাইট আপফ্রন্টে একা হয়ে পড়ছিলেন। তবে গোল না খেয়ে ম্যাচ ড্র করায় ফুটবল বিশেষজ্ঞদের প্রশংশা কুড়িয়ে নিল ফাওলারের ছেলেরা। 


Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.