কোন ব্যর্থতার জেরে হারল ইস্টবেঙ্গল?

শুক্রবার সপ্তম আইএসএলের সেরা দল মুম্বই সিটি এফসির বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল নবাগত এসসি ইস্টবেঙ্গল। তবে এদিনের ম্যাচে চোখে পড়ার মতো ছিল ইস্টবেঙ্গলের প্রথম একাদশ। ব্রাইট রিজার্ভ বেঞ্চে রেখেই হুগো বোউমাসদের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছিল লাল হলুদ ব্রিগেড। ব্রাইট দলে আসায় খেলার শারীরিক ভাষার ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। তবে এদিনের ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের হেড কোচ রবি ফাওলার তাঁর সেরা অস্ত্রকে প্রথম থেকে বাদ দিলেন কেন? ৬৪ মিনিটে স্টেইনম্যানের পরিবর্তে মাঠে নেমেছিলেন ব্রাইট এনোবাখার। বৃহস্পতিবার চেন্নাইয়ানের বিরুদ্ধে ডেভিড ইউলিয়ামসকে দ্বিতীয়ার্ধে নামিয়ে বাজিমাত করেছিলেন এটিকে-মোহনবাগনের স্প্যানিস কোচ অ্যান্থোনিও লোপেজ হাবাস। তবে ব্রাইটকে নিয়ে লাল হলুদ কোচের সেই পরিকল্পনা সফল হল না। ব্রাইটকে কেন এত পরে নামানো হয়েছিল ফাওলারের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষুব্ধ লাল হলুদ সমর্থকদের একাংশ।
ব্রাইট না থাকায় প্রথম থেকে অসহায় লেগেছে ইস্টবেঙ্গলের স্ট্রাইকার পিলকিংটন ও মাঘোমাকে। বল নিয়ে মুম্বইয়ের ডি বক্সে গোলেও ছন্দে খুঁজে পাওয়া যায়নি তাঁদের।ইস্টবেঙ্গলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়রা মুম্বইয়ের স্ট্রাইকারদের আটকাতে প্রায় ব্যর্থ হয়েছেন এদিন। গত ম্যাচে লাল কার্ড দেখায় ছিলেন না অজয় ছেত্রী।  স্কট নেভিল কার্যত এক সময় সমর্থকদের একাংশের কাছে খলনায়ক হয়ে উঠেছিলেন। তবে তিনিই মাঝে মধ্যেই বল বাড়িয়ে সাহায্য করেছিলেন স্ট্রাইকারদের। প্রাক্তন ফুটবলারদের মতে ছন্ন ছাড়া দল নিয়ে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল এসসি ইস্টবেঙ্গল।

 

Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.