শুধু নন্দীগ্রাম থেকেই ভোটে দাঁড়ান, মমতাকে একযোগে আক্রমণ দিলীপ-মুকুল-কৈলাশদের

গত জানুয়ারিতে নিজে নন্দীগ্রাম থেকে ভোটে লড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার এটাকেই হাতিয়ার করে একুশের ভোটে রণনীতি সাজাতে চাইছে বঙ্গ বিজেপি। তৃণমূল নেত্রীর ওপর চাপ বাড়াতে এবার বিজেপির একঝাঁক নেতা একযোগে টুইট করলেন। এরমধ্যে রয়েছেন নন্দীগ্রামের পদত্যাগী তৃণমূল বিধায়ক তথা বর্তমান বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীও। উল্লেখ্য, নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়েই তৃণমূল নেত্রী বলেছিলেন তিনি এখান থেকেই ভোটে লড়তে চান। সেইসঙ্গে এও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে আরও একটি আসন থেকেও দাঁড়াবেন। তবে সেটি কোথায় সেটা খোলসা করেননি। কিন্ত বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব এখন থেকেই চাপ বাড়াচ্ছে যেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুধু নন্দীগ্রাম থেকেই ভোটে লড়েন।

 বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও এই বিষয়ে টুইট করেছেন মুকুল রায়, কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং দিলীপ ঘোষ। তাঁদের সম্মিলিত দাবি, তৃণমূল নেত্রীকে জানাতে হবে তিনি যেন শুধুমাত্র নন্দীগ্রাম থেকেই ভোটে দাঁড়ান। বিজেপির সর্বভারতীয় নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় টুইটে লিখেছেন, ‘মমতাদি ঘোষণা করেছেন নন্দীগ্রাম থেকে তিনি বিধানসভা নির্বাচনে লড়বেন। কিন্তু উনি একথা বলেননি যে শুধু নন্দীগ্রাম থেকেই লড়বেন। নিজের জয়ের ব্যাপারে প্রত্যয়ী হলে উনি সেই ঘোষণাটাও করে দিন। নইলে ধরে নেব নন্দীগ্রামের ওপর ওনার ভরসা নেই’। 

প্রায় একই সুরে মুকুল রায় টুইট করেছেন। তিনি লেখেন, ‘বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী হবেন বলে নিজেই জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই কেন্দ্র থেকে তিনি জিতবেন, এমনটা সুনিশ্চিত হলে তবেই ঘোষণা করুন যে, ওই কেন্দ্র থেকেই তিনি লড়বেন। পরে যেন মুখ্যমন্ত্রী কথার খেলাপ না করেন’। এই একই সুরে আলাদা আলাদা করে টুইট করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারী। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, এটা তৃণমূল নেত্রীকে চাপে রাখার বিজেপির নতুন কৌশল।

 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.