ঘরের বউকে কয়লা চোর বলছে? হুগলি থেকে তোপ মমতার

হুগলির সাহাগঞ্জের জনসভা থেকে অভিষেকের বাড়িতে সিবিআই হানা নিয়ে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনের জনসভা থেকেই তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘গায়ের জোর দেখাচ্ছেন, কোথায় আঘাত করছে দেখুন? বিজেপির আমার ওপর অনেক রাগ। ঘরের বউকে কয়লা চোর বলছে। একটা বাচ্চা মেয়ে ২২ – ২৩ বছর বয়স, ঘরের বউ, তাকে কয়লা চোর বলছেন?’ এরপরই তিনি বলেন, অন্য পার্টির লোককে তোলাবাজ বলছেন? আর আপনার পার্টি কি ওয়াশিং মেশিন? জেনে রাখুন আমি একটা পয়সাও নিই না। আমি মানুষকে সেবা করি। এত বড় সাহস, বাড়ির মা বোনেদের কয়লা চোর বলছেন? আর আপনারা কয়লা চোরের হোটেলে থাকছেন।

 আপনারা কি ভাবেন আমি জানি না? তাই বলে যাই নরেন্দ্র মোদি আর আপনার দানব বন্ধুদের, এদের সঙ্গে থাকা ছোটখাটো চুনোপুঁটিদের, আর মাত্র দু’মাস। তারপর দেখবো কার কত জোর? কার কত গণতন্ত্রের জোর। কেন্দ্রীয় সরকারকেও একহাত নিয়ে এদিন তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘নোটবন্দির টাকা কোথায় গেল, নরেন্দ্র মোদী জবাব দাও। বিএসএনএল বিক্রি হচ্ছে কেন, নরেন্দ্র মোদী জবাব দাও, কোল ইন্ডিয়া বিক্রি হচ্ছে কেন জবাব দাও’।

এদিনও ‘খেলা হবে’ স্লোগান তুলে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘খেলা হবে। এস, খেলে দেখ। ক’জনকে গ্রেফতার করবে, জেল ফেটে বেরিয়ে আসবে। ক’জনকে গ্রেফতার করবে, ধামসা-মাদল থেকে বেরিয়ে আসবে। ভাল করে শুনে রাখ। গুজরাত বাংলা শাসন করবে না। বাংলাই বাংলা শাসন করবে। এক একটা লুটেরা। কারও কান কাটা, কারও নাক কাটা, কারও চোখ কাটা, কারও পা কাটা। দুর্গাপুরে একটা হোটেল বুক করেছে। ওই হোটেল কোন কোল মাফিয়ার জিজ্ঞেস করুন’। 

এদিন নিজের ভাষণে হুগলির উন্নয়ের খতিয়ানও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এই জেলায় ২৪টা ক্লাস্টার হয়েছে। নতুন গ্রিন বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে। তারকেশ্বর উন্নয়ন পর্ষদ হয়েছে। এ ছাড়া গ্লোবাল বিজনেস সামিট থেকে বিপুল বিনিয়োগের প্রস্তাব পেয়েছি। সিঙ্গুরে আমরা ১১ একর জমির উপর অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করছি। ডানকুনি থেকে শুরু করে রেললাইন ধরে শিল্প হতে হতে যাবে।


 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.