ব্রিগেডে উপস্থিত থাকতে চান ‘অসুস্থ’ বুদ্ধদেববাবু, উচ্ছ্বসিত বাম শিবির

অসুস্থতার জন্য দীর্ঘদিন ধরেই ঘরবন্দি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। তবুও দলের প্রতি অনুগত্য এবং নিষ্ঠা তাঁর বিন্দুমাত্র কম নেই। বামফ্রন্টের ব্রিগেড সমাবেশের খবর তাঁর কান পর্যন্ত পৌঁছাতেই তিনি ঠিক করে ফেলেছেন সমাবেশে যাবেন। অথচ গুরুতর অসুস্থতার জন্য তিনি কার্যত শয্যাশায়ী। তবুও অশক্ত শরীরে তিনি ব্রিগেড যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। বাম নেতৃত্বের কাছে এই ব্যাপারে বার্তাও পাঠিয়েছেন। ফলে স্বভাবতই খুশি বাম নেতৃত্ব। তাঁরাও চাইছেন, অন্তত কিছুক্ষণের জন্য ব্রিগেডে আসুক বুদ্ধদেববাবু। যদি চিকিৎসকরা তাঁকে অনুমতি দেন তো তবেই সেটা সম্ভব। সিপিএম সূত্রে আগেই জানা গিয়েছিল, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে তাঁর শরীরিক অসুস্থতার জন্যই এবার ব্রিগেড সমাবেশে আসার জন্য অনুরোধ বা আমন্ত্রণ করা হয়নি। 

মাস কয়েক আগেই তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। এবং চিকিৎসকরা তাঁকে বাড়ি থেকে বের না হওয়ার পরামর্শই দিয়েছেন। তাই বাম ছাত্র-যুব সংগঠনগুলির আবেদন ছিল তাঁদের জনপ্রিয় নেতা যেন ভার্চুয়ালি সমাবেশে যোগ দেন। এই খবরও বুদ্ধদেববাবু শুনেছন। প্রথমে ঠিক ছিল তিনি লিখিত বার্তা দেবেন। পরে নিজেই ব্রিগেডে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। এই খবর পাওয়ার পর স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত বাম নেতৃত্ব। জানা যাচ্ছে ধুলোয় এলার্জি রয়েছে বুদ্ধদেববাবুর। তাই ব্রিগেডে তাঁর উপস্থিত থাকা অনুচিৎ বলেই মনে করছেন দলের একাংশ, চিকিৎসকদেরও মত তাই। 

যদিও বাম নেতৃত্ব এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত পুরোপুরি চিকিৎসকদের ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন। সিপিএম পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম জানিয়েছেন, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য শুধু একটা নাম নন। তিনি বামফ্রন্ট কর্মী-সমর্থকদের কাছে একজন এমন নেতা যাঁর কথা শোনার জন্য তাঁরা অপেক্ষা করে থাকেন। তিনি ব্রিগেড সমাবেশে এলে আমাদের কাছে তা খুব খুশির খবর হবে। তবে সব কিছু নির্ভর করছে চিকিৎসকদের পরামর্শের ওপর। এখন দেখার শারীরিক বাধা কাটিয়ে বাম জমানার শেষ মুখ্যমন্ত্রী এবারের ব্রিগেডে আসতে পারেন কিনা। 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.