‘ভাগ্যক্রমে বেঁচে গিয়েছি’, বাঘমুন্ডিতে বললেন মমতা

হুইল চেয়ারে পায়ে প্লাস্টার নিয়েই জেলায় জেলায় প্রচার শুরু করলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও রবিবার নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে কলকাতায় তৃণমূলের এক পদযাত্রায় তিনি হুইল চেয়ারেই অংশ নিয়েছিলেন। এবার জেলা সফর শুরু করলেন পুরুলিয়ার বাঘমুন্ডি বিধানসভার ঝালদাতে। এদিন মঞ্চে হুইল চেয়ারে বসেই তিনি ভাষণ দিলেন। দলীয় প্রার্থীদের হয়ে ভোট চাওয়ার পাশাপাশি তিনি বিজেপিকে আক্রমণও শানালেন, আবার সেদিনের আঘাত প্রসঙ্গেও মুখ খুললেন।

 এদিন মমতা বলেন, গত ১৩ ও ১৪ মার্চ পুরুলিয়ায় আমার আসার কথা ছিল। কিন্তু আসতে পারিনি, কারণ গত ১০ তারিখে একটা ঘটনায় পায়ে চোট লাগে আমার। সারা শরীরে চোট লেগেছে। ভাগ্যক্রমে বেঁচে গিয়েছি সেদিন। তিনি আরও বলেন, প্লাস্টার পায়ে হাঁটাচলা করতে পারছি না। তবু সামনে নির্বাচন। কেউ কেউ মনে করেছিল পায়ে চোট নিয়ে আমি বেরতে পারব না।  কিন্তু সেটা হওয়ার নয়। আমার চেয়ে সাধারণ মানুষের যন্ত্রণা অনেক বেশি। 


 পাশাপাশি বিগত ১০ বছরে তাঁর সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের খতিয়ানও পেশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান, তৃণমূল সরকার থাকলে বিনা পয়সায় রেশন পাবেন আপনারা। এবার বাড়িতে বাড়িতে রেশন পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। আমাদের সরকার যা করেছে, বিশ্বের কোনও সরকার এটা করতে পারেনি। তিনি আরও বলেন, বাঘমুণ্ডিতে জল সরবরাহের কাজ চলছে। এর পর পুরুলিয়াতে আর জলের সমস্যা থাকবে না। পাশাপাশি বিজেপিকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, টাকা দিয়ে ভোট কিনতে চাইছে বিজেপি।

তিনি দাবি করেন, বিজেপি এত টাকা কোথায় পেল? নোটবন্দি করে প্রচুর টাকা কামিয়েছে। সেই টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন। রেল, এয়ার ইন্ডিয়া, বিএসএনএল, ব্যাংক, সরকারি সংস্থা সব বিক্রি করে দিচ্ছে। ওঁদের প্রধানমন্ত্রী তো সরকার চালাতে পারে না। দেশে গণতন্ত্র নেই। যাঁরা বিরুদ্ধে কথা বলেন তাঁদের বিরুদ্ধে এজেন্সি লেলিয়ে দিচ্ছে। পরে অবশ্য বলেন, এখানে আমরা এত উন্নয়ন করব যাতে সারা পৃথিবীতে পুরুলিয়ার নাম ছড়িয়ে পড়ে। কেউ ভোট দখল করতে এলে, হাতা-খুন্তি নিয়ে মা বোনেরা তেড়ে যাবে। পরে তিনি পুরুলিয়ার বলরামপুরে যান পরবর্তী সভা করতে। 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.