নন্দীগ্রামে প্রার্থী হয়ে গর্বিত, টুইট মমতার, আজ হুইল চেয়ারেই পথে মমতা

আজ ১৪ মার্চ, রবিবার নন্দীগ্রাম দিবস। এই দিনটি বরাবরই তৃণমূল কংগ্রেস বড় করে পালন করে। কিন্তু এবার শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদানের পর বিজেপিও নন্দীগ্রামে শহিদ দিবস পালন করছেন। অপরদিকে নন্দীগ্রামেই ভোট প্রচারে গিয়ে আহত তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আহত, তিনি এখন কলকাতায় আছেন। তবুও এই দিনটিতে ঘরে বসে থাকতে নারাজ নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি আজই কলকাতায় একটি র‍্যালিতে অংশ নেবেন। হুইল চেয়ারেই পথে নামবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তার আগে একটি টুইট করে নন্দীগ্রামের শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  টুইটারে লিখলেন, ‘২০০৭ সালের এই দিনটিতে নন্দীগ্রামে গুলিতে মৃত্যু হয় নিরপরাধ গ্রামবাসীদের। অনেকের দেহ পাওয়া যায়নি। ইতিহাসে আজকের দিনটি একটি কালো দিন। নন্দীগ্রামে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই’। এদিন তৃণমূলের মূল কর্মসূচি গান্ধী মূর্তির পাদদেশ থেকে শুরু করে হাজরা মোড় পর্যন্ত পদযাত্রা। এই কর্মসূচিতে হুইল চেয়ারে বসেই অংশ নিতে চাইছেন তৃণমূল নেত্রী। পাশাপাশি হাজরা মোড়ে এক জনসভায় তিনি ভাষণও দেবেন বলে জানা যাচ্ছে। এই মিছিলে অংশ নেবেন তৃণমূল যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

 

 যদিও প্রতি বছর সাধারণত ‘কৃষক দিবস’ হিসাবে এই দিনটি পালন করে রাজ্য সরকার। সে কথাও টুইটে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন মমতা। আরেকটি টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘নন্দীগ্রামের ভূমি আন্দোলনে যাঁরা প্রয়াত হয়েছিলেন, তাঁদের স্মরণে রেখে প্রতি বছর আমরা ১৪ মার্চ কৃষক দিবস পালন করি। সেই দিনই দেওয়া হয় ‘কৃষকরত্ন সন্মান’। কৃষকরা আমাদের গর্ব, তাঁদের উন্নতির জন্য আমাদের সরকার সর্বদা বদ্ধপরিকর’। অপরদিকে আজই দলীয় নির্বাচনী ইস্তেহার প্রকাশের কথা ছিল তৃণমূলের। কিন্তু সূত্রের খবর, আজ সম্ভবত সেটা হবে না। আগামী ১৭ মার্চ ইস্তেহার প্রকাশ করতে পারে তৃণমূল।
 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.