ভাঙাচোরা ঘর, নেই শৌচালয়ও, এই বাড়ির বধূই শালতোড়ার বিজেপি প্রার্থী

তিনি বিজেপি প্রার্থী, আর তিনিই কিনা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার পুরো টাকা টাকা পাননি। বাঁকুড়ার শালতোড়া বিধানসভা আসনে এবার বিজেপির টিকিট পেয়েছেন চন্দনা বাউড়ি। পেশায় দিনমজুর, স্বামী রাজমিস্ত্রি তাই কোনও রকমে দিন গুজরান করেন চন্দনা বাউড়ি। কঞ্চির বেড়া, বাঁশ দিয়ে কোনওরকম জোড়াতালি দেওয়া ভাঙাচোরা টালির ঘর, নেই কোনও শৌচালয়ও। অভাব তাঁদের নিত্যসঙ্গী। এই ভাঙাচোড়া বাড়িতেই স্বামী, শাশুড়ি, সন্তানদের নিয়ে থাকেন তিনি। সঙ্গে থাকে তাঁদের দুটি ছাগল ও একটি গরু। রাজমিস্ত্রি স্বামীর সঙ্গেই জোগারের করতেন চন্দনা। 


 প্রায় দশ বছর আগে তিনি বিজেপিতে যোগ দেন। ক্রমে নিজের দক্ষতায় উঠে আসেন নেতৃত্বে। ধীরে ধীরে বাঁকুড়া জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন। কঠোর পরিশ্রম করেন। এবার তাঁকেই শালতোড়া থেকে টিকিট দিয়েছে বিজেপি। আর এরপরই তাঁর ভাঙাচোরা ঘরের ছবি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হল। কিন্তু কেন তিনি প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার পুরো টাকা পেলেন না? চন্দনা দেবীর দাবি, এর জন্য দায়ী তৃণমূল সরকার। তিনি বলেন, ২০১৮ সালে আবাস যোজনার জন্য আবেদন করি, ২০২০ সালে ১ লাখ টাকা পাই, সেটা দিয়ে ঘর ও শৌচালয়ের কাজও শুরু করেছিলাম। 

শাসকদলের চক্রান্ত ও দুর্নীতির জন্যই তাঁর টাকা আটকে গিয়েছে বলে দাবি বিজেপি প্রার্থীর। তবে শুধু তাঁর একার নয়, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় অনেকেরই টাকা আটকে দিয়েছে তৃণমূল সরকার। তাই এবারের ভোট প্রচারে তিনি সকলকে আশ্বস্ত করছেন, বিজেপি ক্ষমতায় এলে সবাই প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় টাকা পাবেন। সকাল বিকাল প্রচার করছেন শালতোড়ার বিজেপি প্রার্থী। তাঁর কথায়, দারিদ্রের সঙ্গে লড়াই করেছি, এবার দূর্নীতির সঙ্গে লড়াই করছি।

 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.