জীববৈচিত্র বাড়াতে সুন্দরবনে ছাড়া হল ৬টি কুমীর, খুশি পর্যটকরা

সুন্দরবনে কুমিরের প্রজনন বাড়াতে উদ্যোগী হল রাজ্যের বনদফতর। আর সেই কারণে ভগবৎপুর কুমির প্রকল্প থেকে পাঁচটি ও সজনেখালি থেকে একটি কুমির এনে ছাড়া হল সুন্দরবনের নেতিধোপানি লাগোয়া স্টোরখালি ও মাতলা নদীর সংযোগস্থলে। শেষ কুমির শুমারি অনুযায়ী সুন্দরবন কোর এলাকায় মোট ২৪০টি কুমির ছিল। সুন্দরবনের কুমিরের সেই সংখ্যাটা আরও বাড়ানোর লক্ষ্যে এই উদ্যোগ নিয়েছে বনদফতরের আধিকারিকরা। বৃহস্পতিবারই সুন্দরবনের জীববৈচিত্র বাঁচাতে কুমীর ছাড়া হল সুন্দরবনের জঙ্গলে। এতে পর্যটকদের আনাগোনা বাড়বে বলে মনে করছেন বন কর্তারা। সুন্দরবনের জীববৈচিত্রের জন্য প্রতিবছরই দেশ ও বিদেশ থেকে সুন্দরবনে ভ্রমণের জন্য আসেন বহু পর্যটক। ঝড়খালি, গোসাবা, সজনেখালি, গদখালী, জেটি ঘাট থেকে লঞ্চ ছাড়ে। কিন্তু গতবছরে আমফান ঝড়ের জন্য সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ অরণ্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল। ফলে এই এলাকার পর্যটন শিল্প ক্ষতির মুখে পড়েছিল। 

তবে আনলক পর্ব শুরু হতেই আবার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে সুন্দরবন। এবার জীব বৈচিত্র বাড়াতে আরও ৬টি কুমির ছাড়া হল। বন দফতর সূত্রে খবর, মোট ৫৫টি  কুমীর ছাড়া হবে সুন্দরবনের জঙ্গলে। যাতে সুন্দরবনের জঙ্গলে ঘুরতে এসে বাঘ, কুমির, হরিণ দেখে খুশি হয় পর্যটকরা। এদিন রাজ্যের মুখ্য বনপাল তথা চিফ ওয়াইল্ড লাইফ ওয়ার্ডেন বিনোদকুমার যাদব, অতিরিক্ত মুখ্য বনপাল পি আর চাঁদ, সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর তাপস দাস সহ অন্যান্য বন আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন এই কুমির ছাড়ার কর্মসূচিতে।


Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.