প্রবীর ঘোষালের নামে ‘দাদার অনুগামী’ পোস্টার, জল্পনা উস্কে বললেন ভোটে লড়বেন

এবার হুগলির উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষালের নামেও দেখা মিলল ‘আমরা দাদার অনুগামী’ পোস্টার। হাতজোড় করে প্রবীর ঘোষালের ছবি, নীচে লেখা ‘আমরা দাদার অনুগামী’। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই হুগলির কোন্নগরের বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেল এই পোস্টারগুলি। এই খবর সামনে আসতেই হুগলি জেলা জুড়ে রাজনৈতিক মহলে তীব্র চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। তবে প্রবীরবাবুও কি দল ছাড়ছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে অবশ্য উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক ধোঁয়াশা বজায় রাখলেন। তিনি বলে দিলেন, একুশের ভোটে তিনি এখান থেকেই লড়াই করবেন। কিন্তু দল তো তাঁকে শো-কজ করেছে? এর উত্তরে একদা সাংবাদিক তথা বর্তমান বিধায়ক বলে দিলেন, তিনি খবরেই শুনেছেন তাঁকে শো-কজ করা হয়েছে। তিনি কোনও এই ধরণের চিঠি হাতে পাননি। কে বা কারা চিঠি পাঠিয়েছে, আমি জানি না। তবে তিনি এও বলে দিয়েছেন, যদি দল তাঁকে কোনও চিঠি পাঠায় তবে তার জবাব বেশ কড়া ভাষায় দেবেন। 

দিন কয়েক আগেই এক সাংবাদিক বৈঠকে হুগলি জেলা তৃণমূলের কোর কমিটি এবং দলের মুখপাত্র পদ ছাড়ার কথা জানিয়ে দেন বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল। তারপর বিধায়কের অফিসের সামনে ওঠে গদ্দার স্লোগান। বিধায়কের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন তৃণমূল দলেরই একাংশ। কিন্তু দিন কয়েক পরই দেখা গেল উল্টো চিত্র। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি সম্বলিত শ্রমিক মেলার পোস্টারের পাশেই দেখা যাচ্ছে প্রবীর ঘোষালের নামে ‘দাদার অনুগামী’ পোস্টার। তিনি কি বিজেপি যাবেন? এই প্রশ্নের উত্তরে প্রবীর ঘোষাল জানিয়ে দিলেন, ‘আমি কোনও সিদ্ধান্ত নিইনি’। তবে তিনি এও জানিয়ে দিয়েছেন, তৃণমূলে ভালো লোকেরা কাজ করতে পারবেন না। দাদার অনুগামী পোস্টার নিয়ে প্রবীরবাবু বললেন, গত পাঁচবছর আমি এলাকায় কাজ করেছি, মানুষের পাশে থেকেছি। তাঁরা এখন আমার পাশে থাকার বার্তা দিচ্ছেন। তাই মানুষ চাইছেন আমি এখান থেকে ভোটে লড়েই এই অপমানের জবাব দিই। আমি এই চ্যালেঞ্জ নেব।  


Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.