ট্রাম্পকে ছাড়তে চলেছেন মেলানিয়া?

প্রবাদ আছে, বৃদ্ধস্য তরুণী ভার্যা, অর্থাৎ বুড়ো বয়সে তরুণী স্ত্রী। এই তরুণীকে নিয়ে চলা নাকি অতি বিষম বস্তু। স্বাভাবিক, যুক্তি কোথায়, শরৎ সাহিত্যেও রয়েছে অভাবে কিংবা লোভে অল্পবয়সী মেয়েদের সাথে প্রৌঢ়ের বিয়ের কথা। সেলিব্রেটি দুনিয়ায় এমন অসম বিয়ের গল্প অনেক শোনা গিয়েছে। কিন্তু তাই বলে আমেরিকার মতো প্রথম দেশে? ওখানে বিয়ে করা বা ছাড়া সবই স্বাভাবিক। মার্কিন মুলুকের সদ্য প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলেনিয়া মোটেই প্রথম স্ত্রী নন। দুজনের বয়সের ফারাক ৩০ বছরের, তবুও ফার্স্ট লেডি অফ আমেরিকা ছিলেন মেলেনিয়া। শোনা যায় বিশ্বের অন্যতম ধনী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিয়ে করেছিলেন মেলেনিয়া প্রেমে পাগল হয়ে নয়, নাম যশ খ্যাতি ও অর্থের কারণে। আমেরিকার প্রেসিডেন্টের বউ হওয়াটা ছিল বোনাস।

এবার ক্ষমতা শেষ, ট্রাম্প এখন করুণার পাত্রও নন। অতএব আর নয়, ভাবনা মেলানিয়ার। ভোটের আগে থেকেই বুথ সমীক্ষায় ট্রাম্পের পরাজয়ের আন্দাজ পেয়েই তাঁর সাথে দূরত্ব তৈরি করা শুরু করেছিলেন মেলানিয়া। এবার প্রকাশ্যে এল। হোয়াইট হাউস ছেড়ে বেরিয়ে যুগলে চলে আসেন ফ্লোরিডায়। ও দেশের প্রথা বলে বর্তমান বা প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বিমান থেকে নামবেন স্ত্রীর হাত ধরে। কিন্তু এখানেই বিপত্তি। বিমান থেকে নেমে মেলানিয়া ট্রাম্পের হাত সরিয়ে নিয়ে তরতর করে সিঁড়ি দিয়ে নেমে আলাদা দাঁড়িয়ে থাকেন। আলোকচিত্রীরা ছবি তোলার সাবজেক্টই পেল না। তারপর আলাদা দুজনে হেঁটে বাইরে চলে আসেন। শোন যাচ্ছিল, মেলেনিয়া ডিভোর্স চাইছিলেন, এবার মার্কিন পত্রপত্রিকায় সেটাই প্রকাশ পেল।  


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.