১১ বছর পর লাল-হলুদ জার্সিতে সুব্রত পাল

কয়েক সপ্তাহ ধরেই শোনা যাচ্ছিল এসসি ইস্টবেঙ্গলে আসতে চান সুব্রত পাল। জল্পনার আবসান ঘটিয়ে প্রজাতন্ত্র দিবসেই লাল-হলুদ শিবিরে সই করলেন  সুব্রত পাল। লোন চুক্তিতে চলতি মরশুমের আইএসএলে হায়দরাবাদ এফসি থেকে এসসি ইস্টবেঙ্গলে এলেন ভারতীয় ফুটবলের স্পাইডারম্যান সুব্রত পাল। অন্যদিকে ইস্টবেঙ্গল থেকে হায়দরাবাদ এফসিতে গেলেন তরুণ গোলকিপার শঙ্কর রায়। 

এসসি ইস্টবেঙ্গলে সই করে সুব্রত পাল বললেন, ‘আমি বোঝাতে পারব না কতটা খুশি এসসি ইস্টবেঙ্গলে ফিরে আসতে পেরে। আমি এই জার্সির মর্ম এবং গুরুত্ব বুঝি। আমি নিজেকে খুবই ভাগ্যবান মনে করি এসসি ইস্টবেঙ্গলের একটি অংশ হতে পেরে। আমি খুবই অপেক্ষা করে আছি পিচে নামতে এবং তাদের উন্নতিতে সাহায্য করতে। আমি চেষ্টায় রয়েছি আমার সহ খেলোয়াড়দের সাথে আলাপ করতে এবং ক্লাবকে সবরকম ভাবে সাহায্য করতে’। 

লিভারপুলের কিংবদন্তি তথা এসসি ইস্টবেঙ্গলের কোচ রবি ফাওলার জানিয়েছেন, ‘সুব্রত অত্যন্ত অভিজ্ঞ এবং দীর্ঘ সময় ধরে তেকাঠির নীচে অসাধারণ কাজ করে চলেছেন। তাঁর আগমনে দলের গোলকিপিং আরও উন্নত করেছে। তেমনি সুব্রতর অভিজ্ঞতা অন্যান্য কিপারদেরও সাহায্য করবে’।

এসসি ইস্টবেঙ্গলের গোলকিপিং কোচ ববি মিমস জানিয়েছেন, ‘আমরা জানি ওনার মধ্যে কতটা গুণ এবং অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমি সুব্রতর সাথে জামসেদপুর এফসিতে ছিলাম এবং আমি জানি উনি এই দলে কী পরিবর্তন আনতে পারেন। তাই আমি আশাবাদী উনি প্রথম একাদশে সুযোগ পাওয়ার জন্য দেবজিতকে ভালোই লড়াই দেবেন। সুব্রত পাল ২০০৯ সালে শেষবার লাল-হলুদ জার্সিতে খেলেছিলেন। সেবার ফেডারেশন কাপে জয়ী হয়েছিল ইস্টবেঙ্গল।


Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.