মতুয়াদের ‘ব্ল্যাকমেল’ করছে শান্তুনু, দাবি বিশ্বজিতের, পাল্টা দিলেন শান্তুনুও

রাজ্য বিধানসভার শেষদিনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পায়ে হাত দিয়ে প্রনাম করে বৈঠক করেন বনগাঁর বিজেপি বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস। যদিও তিনি বছর দেড়েক আগে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। তবে তাঁর ‘ঘর ওয়াপসি’ সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন বাংলার রাজনৈতিক মহল। শুক্রবার বনগাঁর বিজেপি বিধায়ক বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তুনু ঠাকুরের নামে মারাত্মক অভিযোগ আনলেন। রীতিমতো সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি দাবি করলেন, ঠাকুর পরিবারের সদস্য শান্তনু বিজেপি-কে ব্ল্যাকমেল করছেন। রাজনীতি করছেন মতুয়াদের নিয়ে। ঘন্টা খানেকের মধ্যেই ব্ল্যাকমেল প্রসঙ্গে জবাব দিলেন বিজেপি সাংসদ তথা মতুয়া মহাসঙ্ঘের প্রতিনিধি শান্তুনু ঠাকুর। তিনি বললেন, ‘বিশ্বজিৎ দাসকে আমার বিরুদ্ধে বলার জন্য কেউ প্রভাবিত করছেন। কারা প্রভাবিত করছেন, সেটা বিশ্বজিৎ দাস আগে বলুক’। পাশাপাশি বিশ্বজিতকে কটাক্ষ করেও তিনি বলেন, ‘সরাসরি মতুয়াদের জিজ্ঞাসা করলেই পরিস্কার হয়ে যাবে তে কাকে প্রতারণা করছে। তাহলে প্রধানমন্ত্রী বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাতে এত ভিড় হতো না’। 

এদিন সকালে আচমকা সাংবাদিক বৈঠক করে বনগাঁর বিজেপি বিধায়ক বিশ্বজিৎ নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। তিনি অভিযোগ তোলেন,  যাঁরা ভোট দিয়েছেন, তাঁরা সবাই নাগরিক। শান্তনু ঠাকুর মতুয়াদের নিয়ে রাজনীতি করছেন। দলকেও ব্ল্যাকমেইল করছেন। নিজের স্বার্থ ছাড়া মতুয়াদের কথা ভাবছেন না। ভ্যাকসিনেশন শেষ হতে প্রায় ৫ বছর লাগবে। তাহলে মতুয়ারা নাগরিকত্ব কি সেদিন পাবে? ফলে পরিস্কার মতুয়াদের ব্ল্যাকমেল করা হচ্ছে। এই অভিযোগের জবাবে শান্তুনুর জবাব, ‘CAA আমি আনিনি। এনেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সুতরাং এই নিয়ে কিছু বলার অর্থ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকেই অপমান করা’। এই প্রসঙ্গে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান, এটা বিজেপির আভ্যন্তরীন ব্যাপার। যদিও তিনি এও বলতে ছাড়েননি যে তৃণমূলের ঘনিষ্ঠতা বাড়ছে কিনা আমি জানিনা, তবে এই ‘বেসুরো’ আরও বাড়বে।  

Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.